1. admin@alokitonoakhali.com : admin :
  2. inof@alokitonoakhali.com : newsdesk :
মগবাজারের ট্রাজেডির ঘটনায় নোয়াখালী দুজনের মৃত্যু। - alokitonoakhali.com
সোমবার, ০২ অগাস্ট ২০২১, ০১:৩০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
১৫ আগস্ট সকল অনুষ্ঠানে র‍্যাবের টহল দৃশ্যমান থাকবে বেগমগঞ্জে বিধিনিষেধ অমান্য করে বিয়ের পর্দ, বরের বাবার অর্থদন্ড ব্র্যাক কর্তৃক কোভিড – ১৯ প্রতিরোধে দুর্গ নামক প্রকল্পের মাক্স বিতরণ কর্মসূচী অনুষ্ঠিত। চাটখিলে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে ধর্ষক ফয়েজসহ গ্রেফতার ৩ সাংবাদিক মুজাক্কির হত্যা মামলায় গ্রেফতার-১ নোয়াখালীতে দাফনের ১১১ দিন পর কবর থেকে গৃহবধূর লাশ উত্তোলন   সেনবাগে পৌর মেয়র প্রার্থী সাইফুল ইসলাম বাবু`র উদ্যোগে তৃতীয় ধাপে মাস্ক – হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ। শেরওয়ানি-পাগড়ি নিয়ে হাসপাতালে যাচ্ছিলেন তারা বাংলাদেশ ছাত্র ও যুব অধিকার পরিষদ এর উদ্যোগ ঈদ পূর্ণমিলন ও বৃক্ষরোপন সেনবাগে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ জানিয়েছেন ইউপি চেয়ারম্যান হাজ্বী রুহুল আমিন

মগবাজারের ট্রাজেডির ঘটনায় নোয়াখালী দুজনের মৃত্যু।

  • আপডেট সময়: সোমবার, ২৮ জুন, ২০২১
  • ১৩৭ পাঠক

আজাদ মিজিঃ

রাজধানীর মগবাজারের ওয়্যারলেস গেটে রোববার ভয়াবহ বিস্ফোরণে যে ছয়জনের মৃত্যু হয়, তার মধ্যে রয়েছেন সুজনের স্ত্রী জান্নাত (২৩) ও সন্তান সুবহানা। এ ছাড়া আহত হয়েছে তাঁর শ্যালক রাব্বি (১২)।

সুজন ঢাকার মগবাজারে রমনা ফার্মেসিতে কাজ করেন। ফার্মেসি থেকে একটু দূরেই সন্ধ্যায় বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। রাত ১১টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে দেখা যায়, সুজন জরুরি বিভাগের সামনে আহাজারি করছেন। তিনি শুরুতে গিয়েছিলেন মগবাজারের কমিউনিটি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। সেখানে গিয়ে মেয়ে সুবহানার লাশ পান। হাসপাতাল সূত্র ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মেয়ের লাশ হাসপাতালে রেখেই সুজন ছোটেন স্ত্রীর খোঁজে। তাঁর লাশ পান ঢাকা মেডিকেলে।

ঢাকা মেডিকেলের জরুরি বিভাগের সামনে মেঝেতে লুটিয়ে আহাজারি করতে করতে সুজন বারবার বলছিলেন, ‘আমার সব শেষ, আর কিছু রইল না।

সুজন স্ত্রী ও সন্তানকে নিয়ে থাকতেন বড় মগবাজার এলাকায়। দুই বছর আগে তাঁদের বিয়ে হয়। তাঁর গ্রামের বাড়ি নোয়াখালীর সুবর্ণচরে। কয়েক দিন আগে তাঁর শ্যালক রাব্বি বাসায় বেড়াতে আসে। গতকাল বিকেলে স্ত্রী জান্নাত তাঁর ভাইকে নিয়ে মগবাজারে শরমা হাউসে খেতে যাওয়ার কথা বলেন। এ জন্য সবুজের কাছ থেকে টাকাও নেন।

সন্ধ্যার পর জান্নাত তাঁর মেয়ে ও ভাইকে নিয়ে শরমা হাউসে গিয়েছিলেন। বিস্ফোরণে ঘটনাস্থলেই সুবহানার মৃত্যু হয়। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান জান্নাত। তাঁর ভাই রাব্বি গুরুতর আহত অবস্থায় একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

সংবাদটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Error Problem Solved and footer edited { Trust Soft BD }
এ বিভাগের আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2021Alokito Noakhali
Web Design By Trust Soft BD